২৯ শে সেপ্টেম্বর রাশিয়ার বাণিজ্য ও শিল্প সভায় ভারতের বাণিজ্য ও শিল্প সভাগুলির সমবেত সভার অধ্যক্ষদের সম্মেলন হয়েছে, এই সভাতে দুই দেশের অনেক ব্যবসায়ী উপস্থিত ছিলেন. বিশদ বিবরণ দিয়েছেন নাতালিয়া বেন্যুখ.ভারতের বাণিজ্য ও শিল্প সভাগুলির সমবেত সভার অধ্যক্ষ প্রতিনিধি দল রাশিয়ার বাণিজ্য ও শিল্প সভায় এসেছিলেন তৃতীয় ভারত রাশিয়া বাণিজ্য ও শিল্প সংক্রান্ত সম্মেলনে যোগ দিতে. ২৯ শে সেপ্টেম্বর মস্কোতে দুই দেশের ব্যবসার প্রতিনিধিদের মধ্যে বৈঠক হয়েছে অনেক. ভারতের প্রতিনিধি দলকে রাশিয়ার সভায় উষ্ণ স্বাগত জানিয়েছেন সভার প্রেসিডেন্ট ইভগেনি প্রিমাকভ. রাশিয়ার প্রশাসনের এক অন্যতম প্রবীণ ও প্রভাবশালী নেতা ও রাশিয়ার বিজ্ঞান একাডেমীর সদস্য ইভগেনি প্রিমাকভ আগে দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রী এবং প্রধান মন্ত্রী ছিলেন এবং বহু বার ভারত সফরে গিয়েছিলেন. উনি ভারতে অনেক কেই চেনেন এবং এই দেশের ব্যবসায়ীদের মধ্যে প্রধানদের সঙ্গেও পরিচিত আগে থেকেই. এই সবগুলি বৈঠকের সুর প্রথম থেকেই করেছে অন্য রকম. পরিবেশ ছিল খুবই বন্ধুত্ব মূলক ও হৃদয়ের কাছাকাছি. একাডেমী সদস্য ইভগেনি প্রিমাকভ প্রথমেই বলেছেন আমাদের দেশে বর্তমানে উদযাপিত হওয়া ভারত জয়ন্তী বর্ষের কথা এবং তার প্রতি রাশিয়ার মানুষের আগ্রহের কথা. "ভারতের শিল্প ও বাণিজ্য ফেডারেশন রাশিয়ার শিল্প ও বাণিজ্য সভার এক প্রাচীনতম সহযোগী. আমরা একসঙ্গে ভারত এবং রাশিয়ার বাণিজ্য ও বিনিয়োগের ক্ষেত্রে সহযোগিতা করে থাকি. এই বাণিজ্যের পরিমানের সূচক সংখ্যা দেখিয়ে দিচ্ছে যে, দুই দেশের বাণিজ্যে বর্তমানের অর্থনৈতিক সঙ্কট খুব বেশী প্রভাব ফেলতে পারে নি, ২০০৫ সাল থেকে আমাদের দুই দেশের বাণিজ্য ও বিনিয়োগের ক্ষেত্রে মোট টাকার পরিমান প্রতি বছরে ৩০ শতাংশ করে বেড়েছে. ২০০৮ সালে এই পরিমান ছিল ৭০০ কোটি ডলার".একাডেমী সদস্য ইভগেনি প্রিমাকভ ভারতের প্রতিনিধি দলকে রাশিয়ার প্রস্তাব পেশ করেন. রাশিয়ার সভার প্রেসিডেন্টের মতে ভারত ও রাশিয়ার মধ্য ও ক্ষুদ্র শিল্প গুলির মধ্যে সহযোগিতার প্রসার হওয়া উচিত. দুই দেশের ব্যবসায়ী সভার প্রধানদের মধ্যে কাজকে আরও সক্রিয় করা উচিত্. আর রাশিয়া ভারত ও চীন এই তিন দেশের মধ্যে ব্যবসায়িক সম্পর্কের উন্নতির জন্য ব্যবসায়ী সভার সম্মেলন করা উচিত. কিছু দিন আগে এই ত্রি দেশীয় সম্মেলন হয়েছে চীনের চানচুন শহরে খুবই সাফল্যের সঙ্গে. প্রেসিডেন্ট বলেছেন, রাশিয়ার সভা চায় এই সম্মেলনে ব্রাজিলকে সঙ্গে নিয়ে চতুর্দেশীয় সম্মেলনের মাধ্যমে সহযোগিতা বৃদ্ধি করতে. উত্তর হিসাবে ভারতের সভার প্রেসিডেন্ট হর্ষ পতি সিংহানিয়া বলেছেনঃ"ভারতের শিল্প ও বাণিজ্য সভাগুলির সম্মিলিত সভা রাশিয়ার শিল্প ও বাণিজ্য সভার সঙ্গে সহযোগিতা বর্ধনে আগ্রহী এবং তা নতুন স্তরে উন্নত করতে চায়. এই ক্ষেত্রে দুই দেশের পারস্পরিক বিনিয়োগ মূল ভূমিকা নিতে পারে. কাজের জন্য দুই দেশের বাজার ও বিনিয়োগ সম্ভাবনার তথ্য প্রচার বিষয়ে যে অপ্রতুলতা আছে তা দূর করতে হবে".সিংহানিয়া তাঁর দৃঢ় অভিমত প্রকাশ করেছেন এই বলে যে, ২০১৫ সালে রাশিয়া ও ভারতের পারস্পরিক বাণিজ্যের পরিমান ২ হাজার কোটি টাকা ছাড়াবে.এই সভাতে ভারতে SUN GROUP  এর চেয়ারম্যান নন্দ খেমকা বক্তৃতা দিয়েছেন, তাঁর কোম্পানী রাশিয়াতে ভারতীয় কোম্পানী গুলির মধ্যে অন্যতম বৃহত্ বিনিয়োগ করেছে. বাণিজ্য ও বিনিয়োগ দুই দেশের মধ্যে স্ট্র্যাটেজিক সহযোগিতা বৃদ্ধির জন্য ভিত্তি হওয়া উচিত, এ ক্ষেত্রে রাশিয়ার জ্বালানী ও শক্তি বিভাগ একটি অন্যতম সম্ভাবনাময় বিনিয়োগ ক্ষেত্র."আমাদের কোম্পানী রাশিয়ার বৃহত্তম বেসরকারি প্রাকৃতিক গ্যাস উত্পাদক কোম্পানী ইতেরা কোম্পানীর প্রকল্পে বিনিয়োগ করেছে, বর্তমানে পশ্চিম সাইবেরিয়াতে প্রাকৃতিক গ্যাস উত্পাদন চালু হয়েছে. ইতেরা ও সান গ্রুপ সানতেরা নামে কোম্পানী খুলেছে, যারা ভারতে ও তৃতীয় দেশে গ্যাস খোঁজার জন্য কাজ করছে.আমরা রাশিয়ার তরফ থেকে ভারতে প্রাকৃতিক গ্যাস অনুসন্ধানে ও আঞ্চলিক গ্যাস সরবরাহের জন্য পাইপ লাইন বসানোতে বিনিয়োগের জন্য কর্মক্ষেত্র দেখতে পাচ্ছি. এ ছাড়া অনেক গুলি গ্যাস থেকে বিদ্যুত উত্পাদন কেন্দ্র পুনর্নবীকরণ করার কাজও রয়েছে, যেগুলি সোভিয়েত দেশের সহায়তায় ভারতে এর আগে তৈরী হয়েছিল". ভারতের ব্যবসায়ী মহল রাশিয়া – ভারত- চীন এই ত্রি দেশীয় বণিক সভার প্রসারে আগ্রহী এবং ব্রিক দেশগুলির সামগ্রিক বণিক সভা তৈরী করতে.

রাশিয়ার শিল্প ও বাণিজ্য সভার এই বৈঠকের শেষে ভারত ও রাশিয়ার বণিক সভার দ্বি পাক্ষিক সহযোগিতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে.