রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রী সের্গেই লাভ্রোভ এ অনুমানকে একেবারে মিথ্যে বলে অভিহিত করেছেন যে, আগস্ট মাসে আটলান্টিক মহাসাগরে দখল করা রাশিয়ার কর্মীদল সম্বলিত আর্কটিক সি কার্গো জাহাজ নাকি বিমান-বিরোধী এস-৩০০ রকেট সিস্টেম বহন করছিল. মস্কোয় এক সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি বলেন যে, শিগগিরই রাশিয়ার কর্তৃপক্ষ এ কার্গো জাহাজে তল্লাসি ও তদন্ত চালাবে. তাতে অংশগ্রহণের জন্য মাল্টার প্রতিনিধিদেরও আমন্ত্রণ করা হবে, যার পতাকা তলে জাহাজটি যাত্রা করছিল. লাভ্রোভ আশ্বাস দেন যে, জাহাজ দখলের ঘটনার তদন্ত হবে যথাসম্ভব খোলাখুলি. আগে রাশিয়ার অভিশংসক দপ্তরের তদন্ত কমিটি জানিয়েছিল যে, তদন্ত চালানো হবে একক তদন্ত গ্রুপের দ্বারা, যাতে অংশগ্রহণ করবে রাশিয়া, মাল্টা, সুইডেন, ফিনল্যান্ড, এস্তোনিয়া ও লাতভিয়া. ১৫ জন রাশিয়ার কর্মী সম্বলিত "আর্কটিক সি" কার্গো জাহাজ ফিনল্যান্ড থেকে আলজিরিয়ায় যাচ্ছিল, আর জুলাইয়ের শেষে রহস্যজনকভাবে অদৃশ্য হওয়ার পর ১৬ই আগস্ট কাবো-ভের্দের অদূরে আটলান্টিক মহাসাগরে আবিষ্কৃত হয়. তদন্তের তথ্য অনুযায়ী, জাহাজটি দখল করেছিল আটজন জলদস্যু, যারা এস্তোনিয়া, লাতভিয়া ও রাশিয়ার নাগরিক. রাশিয়ার নৌবাহিনীর বড় সাবমেরিন-বিরোধী জাহাজ এই জাহাজের কর্মীদলকে মুক্ত করে.