0রাশিয়ার রাজধানী মস্কোর উপকন্ঠে“মাক্স-২০০৯” আন্তর্জাতিক এয়ারো-কসমিক প্রদর্শনীর প্রথম দিনে প্রায় ৮৫ হাজার দর্শনার্থীর সমাগম ঘটে.আগত দর্শনার্থীরা শুধুমাত্র প্রদর্শনী নয় বরং বিমান ছুয়েও দেখার সুযোগ পান.দর্শকরা বিমান ও মহাকাশযাত্রার ক্ষেত্রে নতুন নতুন প্রকল্পের সাথে পরিচিত হওয়ারও সুযোগ পান. প্রদর্শনমূলকভাবে যে বিমানগুলো উড্ডায়ন করা হবে সেগুলো হল — “স্ত্রিঝি” ও “রাশিয়ার সোকোল” বৈমানিক গ্রুপ, ফ্রান্সের “পাত্রুল দে ফ্রান্স” এবং ইতালির “ফ্রেচ্চে ত্রিকোলোরি” দল. এই প্রথম ব্যাপক দর্শকেরা আধুনিক রাশিয়ার প্রথম অসামরিক “সুখোই সুপারজেট” বিমানের উড্ডয়ন দেখতে পাবে. আয়োজকদের মতে, দর্শকদের আগমন নির্ধারিত সম্মেলন ও সেমিনারে কোন বিঘ্ন ঘটাবে না .গতকাল প্রদর্শনীর অংশগ্রহণকারীরা বিমান ও মহাকাশযাত্রার বিকাশের বিজ্ঞান ও পরিপ্রেক্ষিত আলোচনা করা হয়. যদিও এ বছরে এ প্রদর্শনীর আয়োজন কিছুটা হলেও স্তমিত হয়. কারন উদ্বোধনের আগে গত রবিবার অনুশীলনী উড়ানের সময় ঝুকোভস্কির আকাশে দুটি ফাইটার বিমানের মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে . এ দূর্ঘটনায় “রুসস্কিয়ে ভিয়াতেজি” বৈমানিক দলের পাইলট ইগর মারা যায়.