থাইল্যান্ডের ফুকেত দ্বীপে, যেখানে আজ প্রায় তিরিশটি দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রীরা ও প্রতিনিধি দল জমা হয়েছেন এই ৪০ বছরের দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশগুলির সংগঠনের ১৬ তম অধিবেশনে, সেখানে প্রতিনিধি দলের জন্য নির্ধারিত হোটেলের সামনে একটি প্রাথমিক ভাবে মালিক বিহীণ স্কুটারকে বোমা থাকতে পারে সন্দেহ করে, জলের কামান ব্যবহার করে ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে. পরে অবশ্য স্কুটারের মালিকের খোঁজ পাওয়া গিয়েছিল, যদিও এখানে নিরাপত্তার কড়াকড়ি থাকার জন্যই এই বিস্ফোরণটি ঘটানো হয়েছে. আমাদের সমীক্ষক ভিয়াচেস্লাভ সলোভিয়েভ এই সম্মেলনের সম্বন্ধে বিশদ করে জানিয়েছেনঃ

প্রায় দশ হাজার সৈন্য ও পুলিশ বাহিনী পাহারা দিচ্ছে এই শীর্ষ বৈঠক, যাতে এই বছরের এপ্রিল মাসের মত সরকারের বদলের দাবী নিয়ে মিছিল আসিয়ান সম্মেলন ভণ্ডুল করে দিতে না পারে. আজ সকালের ঘটনাকে বাদ দিলে, এই সম্মেলনের অধিবেশনের কাজ খুবই গঠন মূলক ভাবে ও প্রচুর বিষয়ে চলছে. গতকালের আলোচনার অন্যতম বিষয় ছিল রাশিয়া ও আসিয়ান দেশ গুলির পররাষ্ট্র মন্ত্রীদের বৈঠক. রাশিয়ার পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখ্য তথ্য সম্প্রচারক আন্দ্রেই নেস্তেরেঙ্কো এই সম্মেলনের বৈঠকটি সম্বন্ধে বলেছেনঃ

"পররাষ্ট্র মন্ত্রীদের আলোচনার মুখ্য বিষয় গুলি ছিল সহযোগিতা সংক্রান্ত. প্রথমত অর্থনৈতিক দিক টির উন্নয়ন এবং আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক সমস্যাবলী নিয়ে. রাশিয়া – আসিয়ানের সহযোগিতার প্রাথমিক বিষয় গুলি যেমন, জ্বালানী ও শক্তি বিষয়ক, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, পর্যটন, সম্মিলিত ভাবে নূতন সমস্যার মোকাবিলা এবং সন্ত্রাসবাদের মোকাবিলা".

"আজকের বৈঠকের মুখ্য বিষয় হল আঞ্চলিক নিরাপত্তা. রাশিয়া দক্ষিণ পূর্ব এশিয়াতে নিরাপত্তার আইনগত দিকটি শক্ত কাঠামোর উপর স্থাপনের জন্য চেষ্টা করছে. এই ক্ষেত্রে ইউরোপীয় নিরাপত্তার জন্য রাশিয়ার নীতি গত সংযোজন এবং রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভের উদ্যোগে প্রকাশিত সারাংশের ব্যবহার করা যেতে পারে বলে জানানো হয়েছে". রাশিয়ার পররাষ্ট্র দপ্তরের তথ্য বিভাগের প্রধান আন্দ্রেই নেস্তেরেঙ্কো বলেছেন "এই বার্তাটি আজ থাইল্যান্ডের ফুকেত দ্বীপে অনুষ্ঠিত ১৬ তম আঞ্চলিক আসিয়ান দেশগুলির নিরাপত্তা সংক্রান্ত সম্মেলনে পৌঁছে দেবেন রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রী সের্গেই লাভরভ. স্থায়ী নিরাপত্তার প্রসারে প্রয়োজন আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে সামরিক শক্তির অপব্যবহার বন্ধ করা, প্রতিটি দেশের রাষ্ট্রীয় স্বার্থের প্রয়োজনীয়তা স্বীকার, রাষ্ট্রের সার্বভৌমতা ও সীমারেখার স্বীকৃতি. রাশিয়ার প্রস্তাবিত ইউরোপের সংযুক্ত নিরাপত্তার চুক্তিতে এই ঘোষণাই করা হয়েছে". আমাদের নিজস্ব সংবাদ দাতা জানিয়েছেন যে, "আজ এই সম্মেলনের শেষে যে দলিলটি গৃহীত হবে, তাতে এই ফোরামের প্রতিনিধিদের এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের নিরাপত্তার সমস্যার সমাধানের জন্য মূল দিক নির্দেশ গুলি উল্লিখিত হবে".