রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভ দক্ষিণ ওসেতিয়ায় গত বছরের যুদ্ধের জন্য দায়িত্ব আরোপ করেছেন জর্জিয়ার বর্তমান শাসন ব্যবস্থার উপর. সোচি শহরে বক্তৃতা দিয়ে তিনি উল্লেখ করেন যে, সোমবার তিনি প্রথম সফর করেছেন নতুন রাষ্ট্র- দক্ষিণ ওসেতিয়া, যা গড়ে ওঠে প্রায় এক বছর আগে. এটা ঘটেছে, মেদভেদেভের ভাষায়, জর্জিয়ার শাসন ব্যবস্থার দ্বারা বাধানো একেবারে নির্লজ্জ আগ্রাসনের পরে. রাশিয়ার রাষ্ট্রনেতার স্থিরবিশ্বাস যে, জর্জিয়ার জনসাধারণ রাষ্ট্রপতি মিখাইল সাকাশভিলি এবং এ রক্তক্ষয়ী কুকাণ্ডে অংশগ্রহণকারীদের বিরুদ্ধে রায় দেবে. রাশিয়ার কর্তব্য হল — বর্তমানের অসহজ পরিস্থিতিতে দক্ষিণ ওসেতিয়াকে কাঠিন্য অতিক্রমে এবং জীবন গড়ে তুলতে সাহায্য করা. সিনওয়ালিতে রাশিয়ার সামরিক ঘাঁটির কথায় এসে মেদভেদেভ একে তাদের জন্য প্রত্যক্ষ সঙ্কেত বলে অভিহিত করেন, যাদের মাথায় মাঝে মাঝেই আগ্রাসনী পরিকল্পনা দেখা দেয়. আজ দক্ষিণ ওসেতিয়ায় শান্তিস্থাপকদের দিবস পালিত হচ্ছে. ১৭ বছর আগে জর্জীয়-দক্ষিণ ওসেতীয় সঙ্ঘর্ষের এলাকায় শান্তি বাহিনী প্রবেশ করে রাশিয়া, জর্জিয়া, উত্তর ও দক্ষিণ ওসেতিয়ার দ্বারা স্বাক্ষরিত চুক্তি অনুযায়ী. গত বছরের আগস্টে জর্জিয়া এ চুক্তি লঙ্ঘন করে এবং দক্ষিণ ওসেতিয়া ও রাশিয়ার শান্তি-সৈনিকদের উপর আক্রমণ চালায়. এর উত্তরে আগ্রাসককে শান্তির জন্য বাধ্য করার অভিযান চালাতে হয় রাশিয়াকে.