তুলায়, ইয়াস্নায়া পলিয়ানা গ্যালারিতে তলস্তয় ও চেখভ – চেখভ ও তলস্তয় নামে একটি অতুলনীয় প্রদর্শনী শুরু হয়েছে. এ প্রদর্শনীটি উত্সর্গীত রাশিয়ার দুই বিশিষ্ট সাহিত্যিকের প্রতি, যাঁরা নিজেদের জীবন কালেই লোক প্রীতি ও বিশ্ব খ্যাতি অর্জন করেন. প্রদর্শনীর দ্রষ্টব্য বস্তুগুলি অনুপম. এতে আছে লেভ তলস্তয় (১৮২৮-১৯১০ সাল) এবং আন্তন চেখভের (১৮৬০-১৯০৪ সাল)বাড়ির বিরল জিনিসপত্র, যেমন ব্যক্তিগত জিনিসপত্র, ফোটো, বিভিন্ন দলিল, পাণ্ডুলিপি ইত্যাদি. এ প্রদর্শনীতে গিয়েছিলেন আমাদের সংবাদদাতা, তিনি জানাচ্ছেন –

   ২০১০ সালে পালিত হবে দুটি স্মরণীয় দিবস- আন্তন চেখভের ১৫০তম জন্মবার্ষিকী এবং লেভ তলস্তয়ের শততম মৃত্যুবার্ষিকী. এ উপলক্ষে মিউজিয়ামের কর্মীরা দর্শকদের প্রস্তাব করছেন সাহিত্যিকদের রচনা ও জীবনের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে পরিচিত হওয়ার. প্রদর্শনীর ধারণা প্রণয়নের সময় বৈজ্ঞানিক কর্মীরা রুশ সাহিত্য তথা বিশ্ব সাহিত্যের ভাগ্য বহু বছরের জন্য নিরুপণ করা দুই সাহিত্যিকের জীবন ও রচনার মাঝে এক ধরনের তুলনা উপস্থাপনের সিদ্ধান্ত নেন. প্রথমে এ প্রদর্শনী প্রায় তিন মাস ধরে চলে মস্কো প্রদেশের মেলিখোভোতে চেখভের ভবন-মিউজিয়ামে, এখন তা চলে এসেছে তুলায়. প্রদর্শনীর কিউরেটার স্ভেতলানা ব্লিনোভা নিজের মতামত জানিয়ে বলেন –

   এই দুই চরিত্রের মাঝে সম্পর্ক ছিল স্বকীয় ধরনের. আন্তন চেখভ স্বীকৃত প্রতিভা লেভ তলস্তয়ের প্রতি অতি শ্রদ্ধাশীল ছিলেন এবং তাঁকে নৈতিক সম্পদের একছত্র অধিপতি বলে বিবেচনা করেন. তাঁর এ কথাগুলি স্মরণ করা যেতে পারেঃ এ বুড়ো যত দিন বেঁচে আছে, ততদিন রাশিয়ার জন্য চিন্তা করার কিছু নেই. অন্য দিকে তলস্তয় অতি মনোযোগের সাথে লক্ষ্য রাখতেন চেখভের প্রতিভা বিকাশের প্রতি এবং তাঁর সাহিত্য প্রতিভার গুণগান করেন. তবে একসময়ে তিনি নিজের এক মেয়েকে তাঁর সাথে বিয়ে দিতে অস্বীকার করেন. জীবন কালে তাঁদের দেখা হয়েছিল মাত্র ১০ বার. আমাদের মিউজিয়ামে তাঁদের একটি সাক্ষাতের সময় তোলা ফোটো আছে. তাছাড়া, ইয়াস্নায়া পলিয়ানাতে তলস্তয় বংশের কয়েক প্রজন্মের লোকেদের বহু চিত্র আছে, তাছাড়া মেলিখোভোর প্রাকৃতিক দৃশ্যও আছে. প্রদর্শনীতে চেখভের তিন বোন, ভানিয়া কাকা ইত্যাদি বইও দেখানো হচ্ছে. একটি বইয়ের পাতাগুলিতে তলস্তয়ের লেখা বহু মন্তব্য আছে. মনে হয়, দ্রষ্টব্য বস্তুগুলি সাহিত্যিকদের চিন্তা ও অনুভূতি, কিভাবে তাঁরা এ জগতকে গ্রহণ করেন সে সম্বন্ধে, পারিবারিক মূল্যবোধ ইত্যাদি বুঝতে দর্শকদের সাহায্য করবে.

   চেখভের অংশটি কয়েকটি বিষয়ের প্রতি উত্সর্গীত. তার একটি পরিবার সম্পর্কে, যাতে বর্ণনা করা হয়েছে তাঁর বংশ-পরিচয়, তাঁর বাবা-মা, ভাই-বোনের. এতে আছে ফোটো, চিঠি, চেখভের আত্মীয়দের ব্যক্তিগত জিনিসপত্র, যেমন তাঁর মায়ের পেশেন্স খেলার তাস, বোনের ছবি আঁকার অ্যালবাম, তাঁর স্ত্রীর প্রসাধনের জিনিসপত্র, ব্যাগ ইত্যাদি. আছে চেখভের নাটকের মঞ্চায়নের ছবি, চেরি বাগান নাটকের পোষাক. আন্তন চেখভের ব্যক্তিগত জিনিসের মধ্যে আরও আছে পেনসিলে দাগ দেওয়া রোগীদের জন্য ক্যালেন্ডার, ডাক্তারী ব্যাগ, মাথার টুপি, বন্ধুদের ভিজিটিং কার্ড.

   তলস্তয়ের অংশে রয়েছে তাঁর পোষাক, কাজের জিনিসপত্র, পারিবারিক গ্রামাফোন, তাঁর স্ত্রীর ফোটো-অ্যালবাম, যুদ্ধ ও শান্তি বইটির সুন্দর সংস্করণ, অন্যান্য বই, যাতে রয়েছে চেখভের মন্তব্য.

   প্রদর্শনীর দ্রষ্টব্য বস্তুগুলি সংগ্রহ করা গেছে প্রধানত বহু সংখ্যক আত্মীয়, বন্ধু ও পরিচিতদের কল্যাণে. চিঠি, ডায়েরী, প্রত্যক্ষদর্শীদের স্মৃতিকথা দুই মহান সাহিত্যিকের পারস্পরিক সম্পর্কের বর্ণনা করে, তাঁদের রচনার পরিচয় দেয়.