ইউরোপীয় পারমানবিক পরীক্ষা সংস্থা জানিয়েছে যে, বিশাল হ্যাড্রন কোলাইডারের সমস্ত মেরামতের কাজ শেষ হয়েছে. সুইজারল্যান্ড ও ফ্রান্সের সীমান্ত অঞ্চলে মাটির নীচে রাশিয়া সমেত আরও ৮০ টি দেশের পদার্থ বিজ্ঞানীরা সবচেয়ে অধিক ক্ষমতা সম্পন্ন পরমাণু রিয়্যাক্টরটি বানিয়েছেন. এর প্রায় ২৭ কিলোমিটার ব্যাসের পাইপে প্রায় আলোর গতিতে প্রোটন পরমাণু একে অপরের সঙ্গে সংঘর্ষে লিপ্ত হবে. বিজ্ঞানীরা আশা করেছেন যে, এই পরীক্ষার ফলে পরমাণুর প্রকৃতি বুঝতে সুবিধা হবে. এই কোলাইডারের চালু করার সঙ্গে জনশ্রুতি ছিল যে, এর ফলে কালো গহ্বরের সৃষ্টি হতে পারে, আর তা বিশ্বের ধ্বংসের কারণ হবে. কিন্তু বিজ্ঞানীরা এই জনশ্রুতি উপেক্ষা করেছেন. এই যন্ত্রটিতে বিদ্যুতের সংযোগ খারাপ থাকায় তা বন্ধ করে মেরামত করতে হয়েছে এবং বিজ্ঞানীরা যাতে এ ধরনের সমস্যা আর না হয় তার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করেছেন. হেমন্তে এই কোলাইডার আবার চালু করা হবে.