কৃষ্ণ সাগরের তীরে সোচী শহরে ৭ই জুনের উদ্বোধনে বিংশতম "কিনোতাভর" উত্সবে সারা রাশিয়ার সমস্ত সিনেমার সঙ্গে যুক্ত এলিটেরা এসে জমা হয়েছেন. এই উত্সবের অনুষ্ঠান, নানা রকমের বিষয় বস্তুতে ভরপুর.

কিনোতাভরের জয়ন্তী উপলক্ষে উদ্যোক্তারা বিগত বছরগুলিতে পুরস্কৃত সমস্ত শিল্পীকেই আমন্ত্রণ করেছেন. আর তা করতে গিয়েই এক অদ্ভুত ব্যাপার লক্ষ্য করা গেছে. প্রায় সমস্ত চিত্রপরিচালকেরাই, যাদের এর আগে ছবি এই প্রতিযোগিতাতে অংশ নিয়েছিল, তারাই শেষ অবধি পুরস্কৃত হয়েছেন. এই উত্সবের অনুষ্ঠান নিয়ামক অধ্যক্ষা সিতোরা আলিয়েভা এই প্রসঙ্গে বলেছেনঃ

"আমরা একটি স্বপ্রজননকারী কাঠামোতে পরিণত হয়েছি. আর এটাই আসল চলচ্চিত্র উত্সবের অন্যতম লক্ষ্য. বিগত ৫ বছরে আমরা এক নতুন প্রজন্মের চিত্রপরিচালকদের সৃষ্টি করেছি, যারা আজ বিশ্ব পরিচিত ও সমাদৃত এবং আমাদের নতুন আশার পথ দেখিয়েছেন. এরা শুধুমাত্র কিনোতাভরেরই নন, এমনকি বিশ্ব বিখ্যাত চলচ্চিত্র উত্সব গুলিরও প্রথম সারির নামী পরিচালকদের দলের প্রতিনিধিতে পরিণত হয়েছেন".

বিষয় ও ধরনের সংমিশ্রণ, ঐতিহ্য ও পরীক্ষা নিরীক্ষার মেলবন্ধন – এই ভাবেই এ বছরের কিনোতাভর কে আখ্যা দেওয়া যায়. প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ কারী চলচ্চিত্র গুলির মধ্যে আছে মনস্তাত্ত্বিক বিষয়ের নাটক, জীবন মুখী হাস্য কৌতুক, গান নির্ভর ছবি এবং থ্রিলারও. সবচেয়ে বেশী করে আছে বর্তমানে বিশেষ করে দর্শকদের প্রিয় আধুনিক সামাজিক ছবি. "আজকের জনতার পছন্দের ছবি সেটাই, যাতে আছে বাস্তবের সঙ্গে মেলে এমন জীবনের ইতিহাস, যাতে আজকের দিনের সমস্ত সমস্যা, বিভীষিকা অথবা সৌন্দর্য্যের বর্ণনা আছে", বলেছেন সিতোরা আলিয়েভা.

    আর্ট ফিল্ম এবারে অনেক গুলি দেখানো হবে. বোধ হয় এ বছর প্রাধান্য পাচ্ছে এটাই. চিত্র সমালোচকেরা এক বাক্যে ইভান ভীরীপায়েভের ছবি "অক্সিজেন" কে এই উত্সবের সেরা ছবি বলেছেন. এই চিত্রনাট্যকার ও পরিচালক চলচ্চিত্র মহলে সুপরিচিত. ভেনিসের চলচ্চিত্র উত্সবে এর ছবি "ইউফোরিয়া" প্রশংসিত হয়েছিল. নতুন সিনেমাটিকে এর মধ্যেই "প্রজন্মের দলিল" আখ্যা দেওয়া হয়েছে. এই বিষয়ে স্রষ্টার বক্তব্য হল "এই ছবিতে ১০ টি টুকরো অংশ আছে, যার প্রধান ভূমিকায় আছে গদ্য পাঠ. সবটাই এমন ভাবে তৈরী যে, দর্শক পাঠ শুনতে পাচ্ছে, যার সঙ্গে দেখতে পাচ্ছে ছবি ও পাঠের বিষয়ের সঙ্গে তার মিল বুঝতে চাইছে. "অক্সিজেন" – টেকনিক্যালি খুবই কঠিন ছিল তৈরীর সময়, অনেক লোক এই ছবিতে অংশ নিয়েছেন".

এখনও বোঝা যাচ্ছে না, ঐতিহ্য না এক্সপেরিমেন্ট কোন পক্ষকে এই বারের উত্সবে প্রাধান্য দেওয়া হবে. কিন্তু কি কারণে যেন মনে হচ্ছে যে, জুরীরা পরীক্ষা মূলক চলচ্চিত্রকেই তুলে ধরবেন. শুধুই কি আর এই বারের উত্সব শুরু হয়েছে একটি বহু চলচ্চিত্রকারের আলাদা ভাবে প্রেম নিয়ে তোলা ছবির অ্যালম্যানাখ "শর্ট সার্কিট" নামের একটি ছবি দিয়ে.