প্রতিবেশীসুলব সম্পর্ক শক্তিশালীকরন ও পরস্পর সহযোগিতা বিকাশে ও সাংহাই সহযোগি সংস্হার সদস্য রাষ্ট্রগুলি – রাশিয়া, চীন, কাজাকস্হান, কিরগিজিয়া, তাজিকস্হান ও উজবেকিস্হান এর মধ্যে পরস্পর বিশ্বাষ এবং আস্তা বৃদ্ধিতে গনমাধ্যমের ভুমিকা বিষয়ে মস্কোতে গত বৃহস্পতিবার গোলটেবিল বৈঠক আয়োজন করা হয়েছে. এ গোলটেবিল বৈঠকে অংশগ্রহনকারীদের মধ্যে ছিলেন সা.স.স. জাতীয় রুপরেখা কাঠামোর প্রতিনিধিবৃন্ধ, কুটনৈতিক পারার প্রতিনিধিবৃন্ধ, সাংসদ, রাজনীতিবীদ, বিজ্ঞানী, সাংবাদিক ও অন্যান্য বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ. গোলটেবিল বৈঠকে ((আস্হার পরিবেশ ও তথ্য নিরাপত্তা)) বিষয়ক ভিডিওব্রীজের আয়োজন করা হয়. এবিষয়ে আমাদের প্রযবেক্ষক আলবের্ত পাপায়ান, যিনি ভিডিওব্রীজে অংশগ্রহন করেছেন, তিনি বলেনঃ আমি সাংহাই সহযোগি সংস্হার অনেক বৈঠকে অংশগ্রহন করেছি কিন্তু ২৮ শে মে এর গোলটেবিল বৈঠক ও ভিডিওব্রীজের মতো সা.স.স. কর্মপদ্ধতি বিষয়ে এত খোলামেলা আলোচনা করতে দেখি নি. প্রথম বারের মতো বলা হলো সা.স.স এর বাত্সরিক বাজেট ৪ মিলিয়ন ডলার, তবে এ বাজেটে সা.স.স এর বিভিন্ন সমস্যার সাফল্যজনক সমাধান হবে না. গোলটেবিল বৈঠকে অংশগ্রহনকারীদের সবাই এক মত পোষন করেন যে নতুন এই অটোরিটেট আন্তর্জাতিক সংস্হাটির প্রতি প্রচার ও গনমাধ্যমগুলি একেবারেই মনযোগ দিচ্ছেনা. সাংহাই সহযোগি সংস্হার সদস্য রাষ্ট্রগুলির টেলিভিশন দর্শক ও রেডিও শ্রুতারা চীন ও মধ্য এশিয়ার চেয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও নাটো সমন্ধে বেশী অবগত. তাছারা সাংহাই সহযোগি সংস্হার সদস্য রাষ্ট্রগুলি প্রচার ও গনমাধ্যমগুলি বেশীরভাগ সময়ই একচোখা নীতি অবলম্বন করে বে মত প্রকাশ করেছেন কিরগিজিয়া ও তাজিকস্হানের কুটনৈতিকরা.

    ভিডিওব্রীজ মস্কো হতে পিকিং, কাজাকস্হানের রাজধানী আস্তানা, কিরগিজিয়ার রাজধানী বিশকেক ও তাজিকস্হানের রাজধানী দুসাম্বের সাথে যোগাযোগ স্হাপন করা হয়. সি.আই.এস ও বাল্টিক দেশগুলির রিয়া সংবাদ সংস্হার প্রধান সম্পাদক আলান কাসায়েভ জানিয়েছেন ট্যাকনিকেল কারনে তাসকান্দের সাথে সংযোগ প্রক্রিয়া সম্ভব হয় নি.
   গোলটেবিল বৈঠক ও ভিডিওব্রীজে যে ধরনের সমস্যা নিয়ে আলোচনা হয়েছে তাহলোঃ সাংহাই সহযোগি সংস্হার সদস্য রাষ্ট্রগুলির অবস্হান জনপ্রিয়তায়, লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য বিষয়ে গন মাধ্যমের ভুমিকা ও সাংহাই সহযোগি সংস্হার সদস্য রাষ্ট্রগুলির তথ্য ও ভাষা প্রসারনে চীনের অভিজ্ঞতা অনুসরন, সাংহাই সহযোগি সংস্হার সদস্য রাষ্ট্রগুলি যৌথ নিরাপত্তা চুক্তি সংস্হার মধ্য পরস্পর সহযোগিতা ও যোগায়োগ বৃদ্ধি. গোলটেবিল বৈঠক ও ভিডিওব্রীজে অংশগ্রহনকারীরা উল্লেখ করেন সাংহাই সহযোগি সংস্হার সদস্য রাষ্ট্রগুলিতে যুব সমাজের প্রতি মনযোগ দেওয়ার প্রয়োজনীয়তা কখা, সে লক্ষ্যে সা.স.স বিশ্ববিদ্যালয় নির্মানের গুরুত্ব আরোপ করেন, যাতে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগ থেকে পাষ করা ছাত্ররা সা.স.স অন্চলে সংঘঠিত বিভিন্ন ঘটনাবলি খুব অল্প সময়ে পরস্পরের মধ্যে আদান-প্রদান করতে পারে.
   গোলটেবিল বৈঠক ও ভিডিওব্রীজ আয়োজন করা হয়েছে সাংহাই সহযোগি সংস্হার শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠানের মাত্র কিছু দিন আগে, যা উরালের একেত্রিনবার্গে ১৫-১৬ ই জুন অনুষ্ঠিত হবে. এবারের সামিট প্রতি বছরের মতো এক দিনেই শেষ হয়ে যাবে না, তা চলবে দু দিন ধরে. এবং রাষ্ট্র প্রধানরা বিস্তৃতভাবে বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে আলোচনা করবে. এ বিষয়ে গোলটেবিল বৈঠকে অংশগ্রহনকারী রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের সাংহাই সহযোগি সংস্হা বিষয়ক বিশেষ প্রতিনিধি লিওনিধ মইসিয়েভ বলেন যে গোলটেবিল বৈঠক ও ভিডিওব্রীজ আয়োজন করা হয়েছে এমন একটি দায়িত্বপুর্ন সময়ে যখন সাংহাই সহযোগি সংস্হার শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠানের প্রস্তুতির সকল কাজকর্ম সম্পন্ন্য হয়েছে যা উরালের একেত্রিনবার্গে ১৫-১৬ ই জুন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে. রাশিয়ায় তৃতীয় বারের মতো এ শীর্ষ সম্মেলন তার নিজের দেশে আয়োজন করতে যাচ্ছে. এবং এবারো আয়োজন করা হয়েছে উরালে, যা সংস্হার স্ট্রাকচার ইউরো-এশিয় সিম্ভল বহন করে. সাংহাই সহযোগি সংস্হার রাষ্ট্র প্রধানরা অবশ্যই এই ভিডিওব্রীজ গোলটেবিল বৈঠকের সিদ্ধন্তগুলির সাথে পরিচিত হবেন এবং বিভিন্ন সমস্যা সমধানে বাস্তব পদক্ষেপ নিবেন.