বাংলাদেশে ঘূর্ণিঝড় আয়লার আঘাতে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে দক্ষিণ উপকূল অঞ্চলে.সর্বশেষ সরকারি হিসেবে ১৩০ জনের মৃত্যু ঘটেছে বলে জানিয়েছে বাংদেশের খাদ্য ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়.তবে মৃতের সংখ্যা আারও বাড়তে পারে. নিখোঁজ রয়েছে শতাধিক. এখনও পানিবন্দি লাখ লাখ মানুষ. কোথাও কোথাও উদ্ধার কাজ শুরু হলেও অনেক এলাকায় এখনও শুরু হয়নি ত্রাণ তত্পরতা. খাদ্য ও বিশুদ্ধ পানি সংকটে দুর্ভোগে পড়েছে উপদ্রুত এলাকার মানুষ.ত্রানের জন্য ত্রখানের লোকজন দীর্ঘ লাইনে অপেক্ষা করছে ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত.দুর্গত ত্রলাকায় দেখা দিয়েছে পানিবাহিত রোদের প্রাদুর্ভাব. ঘূর্ণিঝড় আয়লায় সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে সাতক্ষীরা. ত্রখানের অনেক ত্রলাকাই ৭/৮ ফুটের বেশি উচ্চতার জলোচ্ছাসে ঘরবাড়ি, মাছের ঘের, কৃষি জমি সবকিছু তলিয়ে গেছে. আরও মৃতদেহ পানিতে ভাসছে বলে জানা গেছে. ত্রদিকে খাদ্য ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, ঘুর্ণিঝড় 'আয়লা'-য় উপকূলীয় প্রত্যেকটি উপজেলার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে. ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার সব মানুষকে পুনর্বাসনে যতদিন প্রয়োজন সরকারি সহায়তা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি আশ্বাস দেন.