পৃথিবীতে সন্ত্রাসবাদের প্রধান কেন্দ্র সরে আসছে পাকিস্থানে. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সশস্ত্র বাহিনীর সদর দপ্তরগুলির অধিকর্তাদের কমিটির সভাপতি এ্যাডমিরাল মাইকেল মালেনের স্বীকৃতি থেকে তা বোঝা যাচ্ছে. তিনি যুক্ত করেছেন আজ পাকিস্থানে মার্কিন সামরিক বাহিনীর শক্তি বৃদ্ধির সাথে. তবে তালিবানিকরন অথবা চরমপন্থা প্রসারের প্রক্রিয়ার মূল আরোও গভীরে নিহিত, মনে করেন আমাদের সাংবাদিক আলেকজান্দর ভাতুতিন.
এ সপ্তাহে স্পষ্ট হয়ে ওঠে যে পাকিস্থানে সত্যিকার যুদ্ধ বেধেছে. একদিকে তা এদেশের ভাংগনের বিপদ দূর করার প্রয়োজনীয়তা সমন্ধে দেশের কতৃপক্ষের সচেতনতারই প্রমান দেয়. অন্যদিকে তা সন্ত্রাসবাদ ও গনতন্ত্রের বিশ্বব্যাপী বিরোধীতা বৃদ্ধির প্রবনতাই প্রতিফলিত করে.
মার্কিনী এ্যাডমিরালের বিবৃতি অনুযায়ি বিগত কয়েক বছরে তালেবান আন্দোলনের সাথে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী আল কায়েদার জালের মিলন বৃদ্ধি পরিলক্ষিত হচ্ছে. সম্প্রতিকালে বিপুল মাত্রায় তা জড়িত ছিল আফগানিস্তানের ক্ষেত্রে. যদিও প্রতিবেশি পাকিস্থানে তার জাল বিদ্যমান ছিল. পাকিস্থানের বর্তমান নেতৃবৃন্দ স্থানীয় তালিবদের অবিবেচিত ছাড় দেবার জন্য দেশের নিয়ন্ত্রন হারানর বিপদে বিপন্ন হয়েছেন. রাষ্ট্রপতি আসিফ আলি জারদারি সোয়াত দ্বীপ উপত্যকা অন্চলে শরীয়তের আইন প্রবর্তনের অনুমতি দিয়ে চরমপন্থীদের প্ররোচিত করেছেন উপজাতিগুলির বাসের এলাকার উপর নিয়ন্ত্রন করার. আর যদি বিবেচনায় রাখা হয় যে পাকিস্থানের হাতে পারমানবিক অস্ত্র আছে তবে এ অস্ত্রে উপর নিয়ন্ত্রন হারানর বিপদ দেখা দিয়েছে. এটাই উদ্বিগ্ন করছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে. এক সময়ে ইসলামাবাদে পারমানবিক অস্ত্র প্রাপ্তির প্রক্রিয়াকে দেখেও দেখেনি কারন সে পাকিস্থানকে এ অন্চলে নিজের রণনৈতিক মিত্রদেশ হিসাবে বিবেচনা করেছিল.
পাকিস্থানের পারমানবিক অস্ত্র সৃষ্টি হয়েছিল ভারতকে সংযত রাখার জন্য. এ অন্চলে পাকিস্থানের মুখ্য প্রতিপক্ষ. এখন তা পড়তে পারে চরমপন্থীদের হাতে আর তারপর সারা পৃথিবীতে. রেডিও রাশিয়ার বিশিষ্ট বিশ্লেষক এ প্রসংগে বলেন, যদি নেতিবাচক ঘটনা বিকাশের ফলে পাকিস্থানে ক্ষমতাসীন হয় র্যাডিক্যাল ইসলামপন্থীরা তবে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী আল কায়েদা পারমানবিক অস্ত্র নিজের হাতে পাবে. আর তখন বিশ্ব সমাজের জন্য পারমানবিক সন্ত্রাসবাদ প্রত্যক্ষ হয়ে উঠবে. এমন ক্ষেত্রে পাকিস্থানী পারমানবিক অস্ত্র ব্যাবহৃত হতে পারে. আর কাফেরদের জন্য এমন অভিসাপের স্বপ্ন বহুকাল ধরেই দেখছে বিন লাদেন. পারমানবিক প্রকৌশল হাতানোর পর ইসলামপন্থীরা তা প্রচার করবে অবান্ছিত দেশগুলিতে আর তার ফলে অস্থিতিশীল শাসন ব্যাবস্থা সম্বলিত পারমানবিক অস্ত্রাধীকারি নতুন নতুন দেশ দেখা দিবে.
আর তা ব্যাপক নর হত্যার অস্ত্র প্রসার নিরোধের ব্যাবস্থার জন্য বিপজ্জনক. আর তার অর্থ পারমানবিক সংঘর্ষের বাস্তব বিপদও দেখা দিবে. পাকিস্থানী সমস্যা যা দেখা দেবার জন্য বহু মাত্রায় দায়ী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র পাকিস্থানের পারমানবিক উচ্চাকাংখা তুষ্ট করার জন্য এবং আশির দশকে তালিবদের প্রথম দলগুলির গঠনে প্রশ্রয় দেবার জন্য, এখন এ ভার এসে পড়েছে বিশ্ব জনসমাজের উপর.