ইউরোসঙ্ঘের সাথে শরিকানার নতুন চুক্তি প্রস্তুতির গতিতে রাশিয়া সন্তুষ্ট. খাবারোভস্কে রাশিয়া-ইউরোসঙ্ঘ শীর্ষসাক্ষাতের ফলাফল সংক্রান্ত সাংবাদিক সম্মেলনে এ কথা বলেছেন রাশিযার রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভ. এ দলিল নিয়ে খাস কাজই উভয় পক্ষের স্থিতির নৈকট্য বৃদ্ধিতে সাহায্য করে, বলেন তিনি. আগের চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়েছে ২০০৭ সালের শেষে এবং তা আপনাআপনিভাবেই প্রলম্বিত হয়েছে. রাশিয়ার পক্ষ মনে করে যে, নতুন চুক্তি হওয়া উচিত বিধানিক দিক থেকে বাধ্যতামূলক এবং তাতে যেন অনুমিত থাকে সমানাধিকার ও পারস্পরিক লাভজনক সহযোগিতা চারটি ক্ষেত্রে- অর্তনৈতিক, বিধানিক, মানবতাবাদী এবং সাংস্কৃতিক ও শিক্ষামূলক ক্ষেত্রে. আমাদের সংবাদদাতা জানাচ্ছেন যে, মেদভেদেভের মূল্যায়ন অনুযায়ী ইউরোসঙ্ঘের সাথে রাশিয়ার সম্পর্ক রণনৈতিক চরিত্র ধারণ করে. এমন ধরনের পারস্পরিক ক্রিয়াকলাপ সবচেয়ে গুরুতর সব বিপদের বিরোধিতা করতে, অতি জটিল সব সমস্যা মীমাংসা করতে সাহায্য করে, সেই সঙ্গে বিশ্ব আর্থিক সঙ্কটের সাথে সম্পর্কিত সমস্যাবলিও. খাবারোভস্কের শীর্ষসাক্ষাতে অমীমাংসিত সঙ্ঘর্ষ সম্বন্ধেও মতবিনিময় হয়েছে. এমন পরিস্থিতি রয়েছে সাইপ্রাসে, কোসোভোয়, মোলদাভিয়ায়, তাছাড়া দক্ষিণ ওসেতিয়া ও আবখাজিয়ার সঙ্গে জর্জিয়ার সঙ্ঘর্ষকে কেন্দ্র করে পরিস্থিতি. মেদভেদেভের কথায়, আলাপ-আলোচনা ছিল গঠনমূলক এবং খোলাখুলি. রাষ্ট্রপতি স্বীকার করেন যে, কিছু কিছু ব্যাপারে পক্ষদ্বয়ের স্থিতিতে মিল নেই. তবে তা সংলাপ চালিয়ে যেতে এবং মতভেদ অতিক্রমের গ্রহণযোগ্য পদ্ধতি খুঁজে বার করতে বাধা দেয় না.