রাশিয়ার প্রসিদ্ধ ভ্রমনকারী ফেওদর কানুহব রেশমি রাস্তা অনুকরনে তার ভ্রমন শুরু করেছেন. বিকাল ৬ট ৪৫ মিনিটে উলান বাটরের কেন্দ্রীয় স্টেডিয়াম হতে আন্তর্জাতিক সায়েন্টিফিক রিসার্চ এক্সপেডিশনের জন্য রওনা হয়েছেন. রেডিও রাশিয়া এই ভ্রমনের একমাত্র তথ্য সহযোগি স্পনসর. তাই আমাদের পক্ষে সম্ভব হয়েছে ফেওদর কানুহবের সাথে যোগাযোগ করার এবং অভিযান শুরু হবার আগে তিনি আমাদের সংক্ষিপ্ত সাক্ষাতকার দিয়েছেন.
কানুহব জানিয়েছেন মংগোলিয়ার প্রসিডেন্ট ও রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী আমাদেরকে বিদায় জানাবে. এর মাধ্যমেই প্রমানিত হয় যে এই অভিযান কতটুকু গুরুত্তপুর্ন. মংগোলিয়ার টেরিটোরি পর্জন্ত তারা সবকিছুই বহন করছে. এবং মংগোলিয়ার সীমানা পার হবার পর রাশিয়ার রুশ ফেডারেশনের কালমাখি প্রজাতন্ত্রের সরকার আমাদেরকে সম্পুর্নরুপে সাহায্য করবে.
এই ভ্রমন অভিযানে ১৫ জন সদস্য অংশগ্রহন করেছে. এর মধ্যে মংগোলিয়ার ৯জন ও রাশিয়ার ৬জন. আমাদের রয়েছে ১২টি উট ও ১৫টি ঘোড়া. আমাদের গ্রুপে উট রক্ষনা বেক্ষনের জন্য মুসলমান, কাজাকও রয়েছে. কালমাখি ও মংগোলিয়ানরা বোদ্ধ এবং আমরা অনেকেই খ্রীষ্টান. তাই বলা যায় এই অভিযানে তিন ধর্মের অনুসারির লোকই রয়েছে.
সাধারনত ফেওদর কানুহবের ভ্রমন অভিযান ভয়ংকর অবস্থা কাটিয়ে স্পর্টস বা খেলাধুলাতেই পরিনত হয়. আশা করি এবারও তাই হবে. মরভূমিতে এই গরম বালুর উপর দিয়ে কয়েকশত কিলোমিটার অতিক্রম করতে হবে. এই ভ্রমন অভিযান সমন্ধে ফেওদর বলেন, এই ভ্রমন অভিযানের বৈশিষ্ট হল বিগত ৩০০ বছর যাবত এই রেশমি রাস্তা অনুকরনে কেও অতিক্রম করেনি. এখানে সায়েন্টিফিক রিসার্চ এর এসাইনমেন্টও রয়েছে. এ বছর ভ্রমনকারীরা আরো যুক্ত করেছেন কালমাখি প্রজাতন্ত্রের জনগন ও রুশ ফেডারেশনের যুক্ত হবার জয়ন্তি পালন করছে.
ফেওদর কানুহব আরো বলেন আমি অত্যন্ত আনন্দিত যে রেডিও রাশিয়া এই অভিযানের এই রেশমি রাস্তা অনুকরন তথ্য প্রচার করবে. মহাসাগর অভিযানেও রেডিও রাশিয়া তার অবস্থান সমন্ধে সব সময় তথ্য প্রচার করে গেছে যখন তিনি একা মহাসাগরীয় পথ অতিক্রম করছিলেন.