রাশিয়া ও বাংলাদেশ এ বছরের মে মাসে বাংলাদেশের প্রথম পারমানবিক বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মান সংক্রান্ত আন্তসরকারি চুক্তি সম্পাদন করতে পারে. রিয়া নভস্তি সংবাদ সংস্থাকে এ সমন্ধে জানিয়েছেন বাংলাদেশের বিজ্ঞান, তথ্য প্রকৌশল ও যোগাযোগ মন্ত্রনালয়ের প্রতিনিধি জনাব হুসেন. তিনি বলেন এ চুক্তি সাক্ষরের জন্য রাশিয়ার প্রতিনিধির বাংলাদেশ সফর হতে পারে দু সপ্তাহ হতে পারে. সফরের সঠিক সময় এবং রাশিয়ার প্রতিনিধি দলের বিন্যাস এখনও নির্ধারিত হয়নি. কারন চুক্তির খসড়া এখনও বাংলাদেশের মন্ত্রী পরিষদের দপ্তরে সরবসম্মত করা হয়নি, বলেন তিনি. রাশিয়ার প্রতিনিধি দল মার্চের শেষে ঢাকা সফর করে. সেখানে রাশিয়ার পারমানবিক শিল্পের সম্ভাবনার উপস্থাপনা করে. বাংলাদেশের কতৃপক্ষ দেশের পশ্চিমান্চলে পারমানবিক বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মানের পরিকল্পনা করেছিল ১৯৬১ সালে. এজন্য রুপপুরে জায়গাও দেখা হয়েছিল. ১৯৭৮ সালে সরকার দেশে পারমানবিক বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মানের উপকারিতার সমর্থন করে. জানুয়ারী মাসে গঠিত বাংলাদেশের গনতান্ত্রিক সরকার ২০১৭ সালে দেশের প্রথম পারমানবিক বিদ্যুত কেন্দ্র চালু করতে চায়. বাংলাদেশ বিদ্যুত শক্তির তীব্র অভাবে ভূগছে. বিশেষজ্ঞদের মতে মাঝারি ক্ষমতা এ বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মানের জন্য ১৫০-২০০ কোটি ডলার লাগবে. এ প্রকল্পের জন্য অর্থের উত্স হিসাবে বিশ্ব ব্যাংকের অথবা অন্যন্য আন্তর্জাতিক আর্থিক সংস্থার কাছে ঋন পাবার সম্ভাবনা বিবেচিত হচ্ছে.