রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ জনসাধারনের আরো ঘনিষ্ঠ হয়েছেন. তিনি ইন্টারনেট ব্যাবহারকারীদের ভাষায় ঝিভোই ঝুরনাল পত্রিকায় নিজের পৃষ্ঠা শুরু করেছেন.
প্রকৃতপক্ষে ইন্টারনেটে নিজের ডায়েরী প্রকাশের এটি প্রথম অভিজ্ঞতা নয় দিমিত্রি মেদভেদেভের.তার সরকারী সাইটে (www.kremlin.ru) ইতিমধ্যে আছে বিশেষ ব্লগ.যাতে প্রকাশিত হয় পৃথক পৃথক উক্তি. আর রেজিস্ট্রিকৃত ব্যাবহারকারীরা সে সম্পর্কে মন্তব্য করতে পারেন. তবে ঝিভোই ঝুরনাল পত্রিকার মন্চে এ সমাজের আগমনের ফলে আগন্তুকরা বেশি সুযোগ সুবিধা পাবেন. এখন তারা রাষ্ট্রপতির উক্তি সম্পর্কেই শুধু মন্তব্য করতে পারবেনা. অন্যান্য ইন্টারনেট ব্যাবহারকারীদের খবর সম্পর্কেও মন্তব্য করতে পারবেন. অবশ্যই ভদ্র ভাষা ব্যবহার, আগ্রাসনী মনোভাব প্রকট না করার শর্তে এর প্রতি কঠোর দৃষ্টি রাখবেন মডারেটাররা. দিমিত্রি মেদভেদেভ গোপন করেননা যে তিনি ইন্টারনেটের সক্রিয় ব্যাবহারকারী এবং এই বিশ্বব্যাপী নেটওয়ার্কে অনেক সময় ব্যায় করেন. সবচেয়ে জনপ্রিয় ইন্টারনেট-ডায়েরী সার্ভিসে এ সমাজের আবির্ভাব-আর সারা পৃথিবীতে রেজিস্ট্রিকৃত আছে প্রায় দু কোটি এ্যাকাউন্ট-বিপুল সংখ্যক লোকের,তাদের নিজেদের ভাষায়, মতামত ও মনোভাব জানার সুযোগ দেয় রাষ্ট্রপতিকে. দিমিত্রি মেদভেদেভ নিজ পত্রিকায় নিজের পৃষ্ঠা থেকে নতুন নতুন ধারনা পাবার আশা করছেন.

রাষ্ট্রপতির দৃষ্টিতে ইন্টারনেট সমাজের মূলনিতীগত প্রাধান্য আছে. এ সমাজে সরবদা চিন্তাকর্ষক ধারনা এবং বাধাধরা মীমাংসা আছে. সেজন্য আমি আমার ব্লগে বিতর্কের সুযোগ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি. এ পত্রিকায় একটি সমাজ গড়ে উঠেছে যাতে প্রচারিত হয় সমস্ত রেকর্ড এবং যাতে অনেকের বহুকালের ইচ্ছা পুরন করা যায়. আপনি যদি ব্লগের কোন আগন্তুককে উত্তর দিতে চান সরাসরি তবে আপনার এখন সে সুযোগ আছে.
বেশির ভাগ পাঠক বিশেষ করে প্রথম দিকে হবে রুষভাষী. তবে ইন্টারনেট এবং বিশ্বব্যাপী নেটওয়ার্ক এজন্যই রয়েছে যাতে সময়ের সাথে সাথে ঝিভোই ঝুরনাল পত্রিকায় রাষ্ট্রপতির পৃষ্ঠায় অন্য ভাষার ব্লগ ক্ষেত্রের উদ্ধৃতিও দেখা দেয়. আর তা আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে দেশের মর্জাদা গড়ে তোলার জন্যও ভাল মনে করেন রাজনৈতিক অধ্যায়ন ইন্সটিটিউটের ডিরেক্টর সেরগী সার্কোভ. এই ব্লগ গঠনের দারা রাষ্ট্রপতি মেদভেদেভ নিজের আধুনিক ইমেজ আবার সমর্থন করেছেন. দিমিত্রি মেদভেদেভের নতুন ব্লগের সাথে পরিচিত হবার ঠিকানা-http://community. Livejournal.com/blog-medvedev