রাশিয়ার নেতৃত্বে সাংহাই সহযোগী সংস্থার রাষ্ট্রীয় প্রশাষন ও ব্যবসায়ী সমাজে জঙ্গিবাদ বিরুধী কার্যক্রম আরো শক্তিশালী করবে. রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গি লাবরভ বলেন রাশিয়া অষ্টীয় গ্রুপ ফরমাটের উদ্ভোগে অনেক আগেই রাষ্ট্রীয় ও বেসরকারীভাবে জঙ্গিবাদ বিরুধী অংশীদ্বারত্তে পরযায়ক্রমে বিকাশিত হচ্ছে. মস্কোতে আন্তর্জাতিক গোলটেবিল বৈঠক – রাষ্ট্র জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে- তিনি তার বক্তৃতায় বলেন এই মতবাদে নতুন পক্ষ ও নতুন অন্চলে বিকাশিত হচ্ছে. সাংহাই সহযোগী সংস্থার বিকাশ রাশিয়ার পররাষ্ট্রনীতির অন্যতম পদক্ষেপগুলির একটি. এটা আমাদের রননৈতিক দিক. এই ধরনের পদক্ষেপ রাশিয়ার নেতৃত্বে অতিপৃক্তি কর্মসুচিই মনে করছে সাংহাই সহযোগী সংস্থা এমনকি সদস্যভুক্ত প্রতিটি দেশএর জাতিয় নিরাপত্তা বিধানের ক্ষেত্রেও. এই পদক্ষেপগুলি বাস্তবায়নের মাধ্যমে শক্তিশালী করে আমাদের সহযোগিতা সম্প্রসারন করে এমন একটি গুরুত্তপুর্ন সংস্থায় পরিত করবো যেখানে জঙ্গিবাদ বিরুধীতার অংশীদ্বারত্ব রাষ্ট্রীয় ও বেসরকারীভাবে বিশেষ করে ব্যবসায়ীদের মধ্যেও চলে আসবে.
রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী বৈঠকে অংশগ্রহনকারীদের স্মরন করিয়ে বলেন যে মার্চ মাসে সাংহাই সহযোগী সংস্থার উদ্ভোগে আফগানিস্থান সম্পর্কে যে বিশেষ সম্মেলন হয়েছে যেখানে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে, মাদকদ্রব্যের অবৈদ সরবরাহ, মাদকদ্রব্যের অবৈদ সরবরাহ, মাদকদ্রব্যের অবৈদ সরবরাহ, মাদকদ্রব্যের অবৈদ সরবরাহ, মাদকদ্রব্যের অবৈদ সরবরাহ, মাদকদ্রব্যের অবৈদ সরবরাহ, মাদকদ্রব্যের অবৈদ সরবরাহ, মাদকদ্রব্যের অবৈদ সরবরাহ, মাদকদ্রব্যের অবৈদ সরবরাহ, মাদকদ্রব্যের অবৈদ সরবরাহে ও সংগঠিত অপরাধ প্রবনতা বন্ধের পদক্ষেপ গ্রহনে সকল সদস্য ঐক্যমতে সিদ্ধান্ত গ্রহন করেন. এই চেলেন্জগুলি শুধু সাংহাই সহযোগী সংস্থার সদস্য রাষ্ট্র ও প্রযোবেক্ষন সদস্যদের জন্যই জাতিয় নিরাপত্তা হুমকি নয় বরং প্রতিবেশী ও অন্যান্য দেশের জন্যও. সম্মেলনে সম্মেলিত সিদ্ধান্তগুলি আন্তর্জাতিক সমাজের হুমকির বিরুদ্ধে কাজ করবে. মস্কো সম্মলনে অংশগ্রহনকারীরা পরবর্তিতে হাগে আফগানিস্থান সম্পর্কে সম্মেলনকে স্বাগত জানিয়েছে.
জঙ্গিবাদ বিরুধী কাজকর্ম সাংহাই সহযোগী সংস্থার প্রধান কাজগুলির একটি, উল্লেকখ করেন লাবরভ. আগামি জুন মাসে রাশিয়ার একেত্রিনবার্গে সাংহাই সহযোগী সংস্থার শীর্ষ সম্মেলনে জঙ্গিবাদ বিরুধী কনভেনশান পরিকল্পনার সাধারন ঐক্যমতের বিষয়ে কাজ করে যাচ্ছে বর্তমান সময়ে. গত সেপ্টম্ভরে ভলগাগ্রাদে সাংহাই সহযোগী সংস্থার উদ্ভোগে জঙ্গিবাদ বিরুধী মহড়া হয়েছে. এপ্রিলের মধ্যে তাদ্জিকস্থানে এ ধরনের মহড়া হবে.
রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিশেষভাবে উল্লেখ করলেন যে এই সব ক্ষেত্রগুলিতে আর্থিক বরাদ্ধ বিশেষ ভুমিকা রাখে যেখানে রাষ্ট্র ও ব্যবসায়ী সমাজ সন্ত্রাসী কর্মের সতর্কতার স্বার্থে সহযোগিতা করতে পারে. তাহলো পরিবহন ব্যবস্থা, গুরুত্বপূর্ন জ্বালানী উত্সের প্রতিরক্ষা ও আন্তর্জাতিক বানিজ্য. বিশেষ করে জঙ্গিবাদের আইডোলজির বিরুদ্ধে মনযোগ দিতে হবে, যেখানে দরকার সক্রীয়তার অংশীদারত্ব রাষ্ট্র, ব্যবসায়ী সমাজ ও সামাজিক সংস্থা এবং যেখানে ভুমিকা রাখতে পারে এন.জি.ও ও গনমাধ্যমগুলি. এ ক্ষেত্রে ব্যবসায়ী সমাজের সাথে এন.জি.ও গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা রাখতে পারে.