লন্ডনে অর্থনৈতিক শক্তিশালী ২০ টি দেশের শীর্ষসম্মেলনের ফলাফলে রাশিয়া সন্তুষ প্রকাশ করেছে. তা জানিয়েছেন সাংবাদিক সম্মেলনে রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের সহকারি আরকাদি দ্ভরকোবিচ. গত বছরের নভেম্বরে অনুষ্ঠিত ওয়াসিংটনে G-২০ শীর্ষসম্মেলনের তুলনায় এবারের সম্মেলন সফলতার সাথে শেষ হয়েছে. প্রথমত এবার অনেক বিষয়ে সমঝোতায় পৌছেছে. আরকাদি দ্ভরকোবিচ বলেন যে এ স্বাক্ষাতে অনেক জটিল বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে, যেখানে আলোচনায় ভিন্ন ভিন্ন অবস্থানে বিভক্ত হয়েছে, তবে বেশীর ভাগ বিষয়ে সমঝোতা হয়েছে. এ সম্মেলনে সংকট বিমোচনের নির্দিষ্ট পদক্ষেপ যেমন বিশেষ রাজস্ব জোনের তথ্য উম্মোক্ত করা, রেইটিং এজেন্ট ম্যানেজমেন্ট, বেসরকারী বিনিযোগ তহবীল, হিসাব বিজ্ঞানের স্টান্ডার্ট পরিবর্তন নিয়ে আলোচনা হয়. এই সব বিষয়ের উপর অনেক আইডিয়া এবং প্রস্তাব এসেছে, যা খুব নিকটবর্তী সময়ে আন্তর্জাতিক সমঝোতাস্বরুপ সুশৃংখল স্টান্ডার্ট হিসাবে গ্রহন করা হবে. দ্ভরকোবিচ বলেন যে লন্ডন সামিট প্রমান করেছে বিশ্বের শীর্ষ অর্থনৈতিক দেশগুলির আগ্রহ রয়েছে প্রভাবিত আর্থিক সংস্থাগুলির সংস্করনের বিষয়ে. আগের স্থিতিশীল ফোরামের আলোকেনতুনভাবে স্থিতিশীল অর্থনৈতিক পরিষদ গঠন কর হয়েছে, যা নির্দিষ্ট পদক্ষেপের জীবন্ত উদাহরন. এই পরিষদে আমাদের পক্ষ হতে অর্থম্ত্রী, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রধান, ও বাজার অর্থনীতির ফেডারেল সংস্থার চেয়ারম্যান. G ২০ সদস্য রাষ্ট্রগুলির সহকর্মীদের সঙ্গে মিলে নতুন স্টান্ডার্ট তৈরীকরন এবং সেসব স্ট্যান্ডার্টের মনিটরিং করবে যেসব স্ট্যান্ডার্টের গ্রিহীত হয়েছে ও যে সব গ্রহন করা হবে. পরিষদ সেসব স্ট্যান্ডার্ট নিয়ন্ত্রন করবে যা ব্যাংক, বিনিয়োগ, অর্থ তহবীলের সাথে একে অপরের মিল থাকে. যাতে ভিবিন্ন অর্থ বাজারে ভিবিন্ন স্ট্যান্ডার্ট না হয় একই বিষয়ের উপর. লন্ডন সামিটে সংকট বিমোচনে রাশিয়ার উদ্ভোগী প্রস্তাবের উপরও আলোচনা হয় আন্তর্জাতিক আর্থীক সংস্থার সংস্কারের বিষয়ে এবং সংস্থার আভ্যন্তরীন পুনর্গঠনেরও প্রয়োজনীয়তা রয়েছে এবং ভিবিন্ন কোটারও সমতা আনার প্রয়োজন.
রাশিয়ার প্রস্তবের উপর অনেকেই ঐক্যমত প্রকাশ করেছেন বিশেষ করে আন্তর্জাতিক মুদ্রা পদ্ধতির বিকাশের বিষয়ে যেখানে রয়েছে বৈদেশিক মুদ্রা রিজার্ভের ভিন্ন ভিন্ন অন্চল ভাগে বৈদেশিক মুদ্রার আন্চলিক সংস্থা গঠন. তবে এ বিষয়ে লন্ডন সামিটে আলোচনা হয়নি বল্লেন আরকাদি দ্ভরকোবিচ. রাসিয়া মনে করে এ বিষয়ে বিশ্বে আলোচনা হচ্ছে এবং তা হতে থাকবে.