দক্ষিন ওসেটিয়া ও আবখাজিয়ার স্বাধীনতা বিষয়ে রাশিয়ার স্বীকৃতি নির্ভর করছে জর্জিয়ার প্রেসিডেন্ট মিখাইল সাকাসভিলি ভবিষ্যতের কার্যকলাপের উপর. রাশিয়ার দক্ষিনের শহর সচীতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেরগী লাভরত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন.

    তিনি বলেন আমরা খুব ভাল করে দক্ষিন ওসেটিয়া ও আবখাজিয়ার জনগনের অনুভুতি বুঝতে পারছি বিগত ১৫ বছর যাবত জর্জিয়ার পক্ষ বিভিন্নভাবে নির্জাতিত হয়ে আসছে. তবে এবারের নির্জাতনের হিসাব চলে গেছে সীমানার বাইরে এবং সাধারন শান্তিপ্রীয় এ জনগনের উপর বর্বর হামলা. সভ্য সমাজের জন্য ভয়াবহ রূপ ধারন করেছে সেখানে বল্লেন, সেরগী লাভরভ.

     রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী দু বছর পূর্বে দেয়া সাকাসভিলির ওয়াদার কথা স্মরন করিয়ে দিয়ে বলেন সেদিন তিনি বলেছিলেন শক্তি প্রয়োগের মাধ্যমে নয় শান্তিময় আলোচনা পদ্ধতিতে সংকটপূর্ন অন্চলের  জনগনকে উত্সাহ প্রদান করা হবে অখন্ডীয় জর্জিয়া রক্ষায়. যদি জর্জিয়ার অখন্ডতার বিরুদ্ধে কেও শক্তি প্রয়োগ করেন তাহলে তিনিই হলেন জর্জিয়ার বর্তমান রাষ্ট্রপ্রধান উল্লেখ করলেন সেরগী লাভরভ.

      গত বৃহষ্পতিবার দক্ষিন অসেটিয় রাজধানী সিনবালিতে সে অন্চলে জনগন ও নেতৃবৃন্দ জানিয়েছেন যে এই অস্বীকৃত প্রজাতন্ত্রের জনগন জর্জিয়ার সেনাবাহিনীর নতুন নতুন শক্তিপ্রয়োগে নির্যাতনের অপেক্ষায় ক্লান্ত. তারা আরো জানিয়েছেন যে কোন প্রচেষ্টাই দক্ষিন অসেটিয়কে জর্জিয়ার অন্তর্ভুক্ত করলে জর্জিয়ার ক্ষমতাশীলরা অসেটিও বাসির উপর জেনোসিটে রুপান্তরিত করবে. দক্ষিন অসেটিও জনগন চায় শান্তির সাথে বাস করে তারা তৈরী করতে চায় শান্তি ও নিরাপত্তাপূর্ন দেশ তাদের সন্তানদের জন্য. আর এটা সম্ভব শুধু মাত্রই আন্তর্জাতিক স্বীকৃতিতে স্বাধীন দক্ষিন অসেটিয় রাষ্ট্র গঠনের মাধ্যমে. বলা যায় দক্ষিন অসেটিয় বেশির ভাগ লোকসংখ্যাই রুশীয় জনগন. তাই ঐতিহাসিকভাবে রুশীয় ও অসেটিয় জনগন সিনালে মিটিং সভায় রাশিয়াকে অনুরোধ করেছে সর্বপ্রথম দক্ষিন অসেটিয় প্রজাতন্ত্রকে স্বাধীনতার স্বীকৃতি দেয়ার জন্য.

   একইভাবে আবখাজিয়ার রাজধানী সুখুযীতে হাজার হাজার জনগন রাস্তায় নেমে মিছিল সমাবেশে মস্কোকে তদ্রুপ অনুরোধ জানায়. গতকাল দক্ষিন অসেটিয়া ও আবখাজিয়ার পার্লামেন্ট বিধিসম্মত স্বাধীনতার খসড়া বিল তৈরী করেন.

    আবখাজিয়া ও দক্ষিন অসেটিয়া জনগনের অনুভুতির আলোকে আগামি সোমবার রাশিয়ার নিম্নকক্ষ ও উচ্চকক্ষের সংসদের বিশেষ অধিবেশন বসছে.