0২৫শে জুলাই সাংহাই সহযোগি সংস্থার পর রাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠকে দুসাম্ভে রাশিয়ার পর রাষ্ট্রমন্ত্রী সেরগি লাভরোভ বলেন যে এই সংস্থার বিকাশই রাশিয়ার ভূ-রাজনীতির অন্যতম সফলতা . আর তা হল স্ট্রাটেজিক অপরিবর্তনীয় গতি এবং আমরা প্রতিনিয়ত পর্যবেক্ষন করছি এর লক্ষ্য ও কার্যক্রম উল্লেখ করলেন সেরগি লাভরোভ. এ সম্বন্ধে আমাদের বেতার কেন্দ্রের বিশেষ সাংবাদিক এলিজাবেথ ইসাকর পর্যালচনায় যা বল্লেন – ভয়েস অফ এলিজাবেথ ইসাকভঃ বৈঠকের অন্যতম বিষয় ছিল সাংহাই সহযোগি সংস্থার সম্প্রসারন. এই সম্প্রসারন প্রক্রিয়া দুই বছর চলবে. সাংহাই সহযোগি সংস্থার ভূ রাজনৈতিক তাত্পর্য ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সমস্যার সমাধান প্রকল্পে এই সংস্থার সদস্য বৃদ্ধির প্রয়োজন . তবে এই সংস্থার সম্প্রসারনের নিষেধাজ্ঞা এখও উঠিয়ে নেয়া হয়নি. তবে পররাষ্ট্রমন্ত্রীগন একমতে পৌছেছেন যে এই বিষয়ে বিশেষজ্ঞ পর্যায়ের বৈঠকে আরো আলোচনা চালিয়ে যাবেন বলে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেরগি লাভরোভ বলেন. –ভয়েস অফ সেরগি লাভরোভ.


0আমরা ঐক্যমতে পৌছাতে পেরেছি যে প্রথমত পর্যবেক্ষক সদস্য হিসাবে সাংহাই সহযোগি সংস্থার সব বিষয়ে অংশ গ্রহন করতে পারবে. নিশ্চিত যে এই সংস্থার রাষ্ট্রপ্রধান এই ব্যাপারে সঠিক সিদ্ধান্ত দিবেন. তারা আমাদের এই প্রস্তাব পর্যবেক্ষন করবে এবং তাদের অনুমোধনের পর আমরা সামনের দিকে এগিয়ে যাব জানালেন রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী.


0সাংহাই সহযোগি সংস্থার যোগাযোগ রক্ষাকারি গ্রুপের বৈঠক আজ শেষ হয়েছে আফগানিস্তান বিষয়ে. এই সংস্থার প্রধান কাজ মাদকদ্রব্য চালানের রাস্তা প্রতিরোধ করা. আর এই জন্যই সাক্ষাতে মিলিত সবাই প্রয়োজন বোধ করছে অন্যান আন্তর্জাতিক সংস্থার সাথে সাংহাই সহযোগি সংস্থার প্রসারন এই narco traffic প্রতিরোধ করার জন্য . সাংহাই সহযোগি সংস্থার সদস্য দেশগুলি হল রাশিয়া, চিন,কাজাখস্থান,কিরগিজস্থান,তাজিকিস্থান ও উজবেকস্থান. এছাড়া ভারত, ইরান, মংগোলিয়া ও পাকিস্থান পর্যবেক্ষক সদস্য. দুসাম্ভের বৈঠকে এছাড়াও আলোচনা হয়েছে আগামি ২৮শে আগষ্ট সাংহাই সহযোগি সংস্থার সদস্য দেশের রাষ্ট্র প্রধানদের শীর্ষ বৈঠকের পর রাশিয়া এই সংস্থার সভাপতিত্ব করবে পরবর্তী বছরের জন্য. বৈঠকে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো জানিয়েছেন যে খুব শীঘ্রই এই সংস্থার আওতায় বহু ফরমাট সমৃদ্ধ যৌথ নিরাপত্তা ব্যাবস্থার আলোকে খসড়া তৈরী করা হবে. যেখানে রয়েছে সদস্যদের চুক্তি যে কোন দেশ আক্রান্ত হলে সম্মিলিতভাবে প্রতিরোধ করা হবে. সেরগি লাভরোভ বলেছেন এই আইডিয়া সেপ্টেম্বরে জাতিসংঘের সাধারন সভায় উপস্থাপন করা হবে এবং জাতিসংঘের রেজুলেশনের আওতায় জাতিসংঘের সাথে সাংহাই সহযোগি সংস্থা সম্মিলিতভাবে জংগী ও সন্ত্রাস দমনে কাজ করবে.